কৃষি ১৭ নভেম্বর, ২০২০ ০৯:৫১

আগাম আমনে হাসছে কৃষকেরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

শেরপুরে শুরু হয়েছে আবাদ করা আমন ধান কাটা। বাজারে ধানের ভালো দাম পাওয়ায় দারুণ খুশি কৃষকরা। এবার রোপা আমন আবাদ করে অন্য জাতের তুলনায় একর প্রতি প্রায় ২০ হাজার টাকা নিট লাভ পেয়েছেন কৃষকরা।

কৃষক নজরুল ইসলাম বলেন, গত বছর আমি এক একর জমিতে অ্যারাইজ এজেড ৭০০৬ হাইব্রিড ধান আবাদ করে ভালো ফলন পেয়েছি। তাই এবার আমি আড়াই একরে এ ধান লাগাইছিলাম। ধানের জাতটা খুব ভালো। ফলন বালা অইছে, বাজারে ধানের দামও ভালো হওয়ায় আমি খুব খুশি।

হাইব্রিড ধান বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান বায়ার ক্রপ সাইন্স-এর বিজনেস ডেভেলপমেন্ট কর্মকর্তা কৃষিবিদ চন্দন কুমার মিত্র জানান, অ্যারাইজ এজেড ৭০০৬ আমন মৌসুমে সর্বোচ্চ ফলনশীল হাইব্রিড ধান। একরে ৫৫-৬৫ মণ ধান পাওয়া যায়। এই ধানের বড় বৈশিষ্ট্য হলো পাতাপোড়া রোগ প্রতিরোধী। আমনে জীবনকাল ১২৫-১৩০ দিন। জীবনকাল স্বল্প বিধায় ধান কেটে আগাম রবিশস্য সহজেই আবাদ করা যায়। এবার কৃষকরা এই হাইব্রিড ধান আবাদ করে অন্য জাতের তুলনায় একর প্রতি প্রায় ২০ হাজার টাকা অতিরিক্ত নিট লাভ পাচ্ছেন।

নকলা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ পরেশ চন্দ্র দাস জানান, কৃষকরা স্বল্পজীবনকালের আগাম জাতের এ আমন ধান কেটে ওই জমিতে সরিষা কিংবা অন্যান্য রবিশস্য আবাদ করতে পারায় এ জাতের ধানের আবাদ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। নকলা উপজেলায় এ বছর রোপা আমনে ১ হাজার ৮৭০ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড ধানের আবাদ হয়েছে। তার মধ্যে অ্যারাইজ এজেড ৭০০৬ জাতের ধান আবাদ হয়েছে ২২৫ হেক্টর জমিতে।