কৃষি ১৯ নভেম্বর, ২০২০ ০৯:৪৪

ধান চাষে সফল মংলার নারীরা চাষিরা

ছবিঃ সংগৃহীত

ছবিঃ সংগৃহীত

নিজস্ব প্রতিবেদক

লোকাল গভর্নমেন্ট ইনিশিয়েটিভ অন ক্লাইমেট চেঞ্জ (লজিক) এর সহায়তায় ধান চাষ করে নতুন আলো দেখছে মোংলার নারী কৃষকরা। আর্থিক সহায়তা, প্রশিক্ষণ প্রদানের পাশাপাশি সার-বীজ বিতরণে ধানের বাম্পার ফলন পেয়েছেন। পাকা সোনালি ধান কাটা শুরুও হয়েছে ইতিমধ্যে।

ধান কাটা নিয়ে এখন বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন মংলার নারী কৃষকেরা। এখন শুধু ধান ঘরে তোলার অপেক্ষা। তারা জানান, লজিক আমাদেরকে নগদ টাকা দিয়ে অন্যের জমি বগার নেয়ার সুযোগ করে দিয়েছে। জমিতে চাষাবাদ করে আমরা ধানের বাম্পার ফলন পেয়েছি। এখন কেটে তা কাড়াই করে ঘরে তুলবো। নতুন ধানের চালে পায়েস, পিঠা খাবো। লজিক আমাদের পাশে না দাঁড়ালে কোনোভাবেই আমরা এভাবে ফসল ফলিয়ে লাভবান হতে পারতাম না। কখন চিন্তাও করিনি এই লবণ পানি ও মাটিতে এত সুন্দর ধান হবে।

তাঁরা আর জানান, আমরা প্রথম নারীরা মাঠে চাষ করে ধান ফলিয়ে সেগুলো নিজেরাই কেটে ঘরে নিচ্ছি। আগামীতে লজিক আমাদের পাশে থাকবে এবং আমরা যাতে জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে সাথে বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের মধ্যদিয়ে জীবনযাপন করতে পারি সেই দাবিই জানাচ্ছি লজিকের কাছে।

লজিক প্রকল্পের আওতায় মোংলা উপজেলার সোনাইলতলা ইউনিয়নের ৪৫ জন নারী দলীয় কার্যক্রমমে মাধ্যমে জমি লিজ নিয়ে ৪৩ বিঘা জমিতে লবণাক্ত সহনশীল ধান চাষের মাধ্যমে জলবায়ু সহনশীল জীবিকা উপার্জন করতে সক্ষম হয়েছেন। লজিকের কর্মকতা-কর্মচারীরা যাচাই বাছাই করেই জলবায়ু জনিত বিপদাপন্ন এ সকল নারী পরিবারদেরকে চিহ্নিত করে দলে দলে বিভক্ত করে কার্যক্ষম করে তুলেছেন।

৪৩ বিঘা জমিতে ধান চাষের জন্য ৪৫ জন নারীর প্রত্যেককে ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে ২৯ হাজার ৪৮০ টাকা করে দিয়েছেন লজিক। সেই টাকা দিয়েই জমি লিজ নিয়ে চাষাবাদ করে তারা সোনার ফসল ফলিয়েছেন।

লজিকের সহায়তায় ধান চাষাবাদ শেষে পাকা ধান কাটা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন লজিক প্রকল্পের ডিস্ট্রিক ক্লাইমেট চেঞ্জ কো-আরডিনেটর মো. মজিবর রহমান, ডিস্ট্রিক গ্রান্ট মনিটর এন্ড ফ্যাসিলিটেটর ফেরদৌসী শারমিন ও উপজেলা কৃষি অফিসার অনিমেষ কুমার বালা।