স্বাস্থ্য সেবা ৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৭:৩৬

ঢাকায় ২০০ টাকায় ডায়ালাইসিস (ভিডিও)

রায়হান শোভন

টাংগাইল থেকে সপ্তাহে তিন দিন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে এসে ডায়ালাইসিস করছেন আম্বিয়া বেগম সপ্তাহে তিনদিন থেকে আড়াই ঘণ্টার পথ পাড়ি দিয়ে আসেন এখানে কিডনি রোগের সঙ্গে যুদ্ধ করে হারিয়েছেন সকল সহায় সম্পত্তি বাবা মায়ের পরে সবচেয়ে কাছের মানুষ নিজের স্বামীকে

আম্বিয়ার অসুস্থতায় তিক্ত হয়ে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটিয়ে তার স্বামী এখন নতুন সম্পর্কে আবদ্ধ হয়েছেন অসুস্থতার যন্ত্রণা আর স্বামীর ছেড়ে যাওয়ার বেদনায় যখন তার চারপাশে ঘন কালো আঁধারের ঘনঘটা ঠিক তখনই আশার আলোর মতো তিনি খোঁজ পেয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের এখান থেকে বিনামূল্যে ডায়ালাইসিস সেবা নিয়ে তিনি এখন স্বপ্ন দেখছেন নতুন করে বাঁচার

হাসপাতালের ডায়ালাইসিস ওয়ার্ডে কথা হয় আম্বিয়ার সাথে তিনি জানান, বাংলাদেশ ইসলামিক ইউনিভার্সিটি থেকে ব্যাচেলর অব বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশন (বিবিএ) সম্মান অর্জন করেছেনআগে বেসরকারি একটি হাসপাতালে ডায়ালাইসিস করাতেন সেখানকার খরচ মেটাতে তার বাবাকে সকল বিষয়-সম্পত্তি বিক্রি করতে হয়েছে অসুস্থতার কারণে তার বৈবাহিক সম্পর্কেরও বিচ্ছেদ ঘটে

তিনি বলেন, বর্তমানে আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুরাই আমার আনুষাঙ্গিক সকল খরচ চালাচ্ছে এছাড়া, গণস্বাস্থ্যের চিকিৎসার মানের ব্যাপারেও তার সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন

ধানমন্ডিতে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ডায়ালাইসিস করাতে কুমিল্লা থেকে আসেন ৩৮ বছর বয়সী জোছনা বেগম  কৃষি কাজ করেন পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম স্বামী সামর্থ্য না থাকায় বেশিদিন ডায়ালাইসিস করাতে পারেননি সেখানে। তারপর খোঁজ পান গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের আজ প্রায় দেড় বছর যাবত বিনামূল্যে ডায়ালাইসিস করছেন এখানে

এতো গেলো ডায়ালাইসিসে খরচের কথা কুমিল্লা থেকে যাওয়া-আসার খরচও মেটাতে পারছিলেন না জোছনা পরে তার দুরবস্থার কথা বিবেচনা করে হাসপাতালেই তার থাকার ব্যবস্থা করা হয়

পরিবারের এমন দুরবস্থায় ৬ষ্ঠ শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশুনা করা জোছনার ছোট্ট ফুটফুটে ছেলেটি স্কুলে যাওয়ার পরিবর্তে মায়ের ঔষধের খরচ জোগাতে কাজ করছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ক্যান্টিনে পড়াশুনার স্বপ্ন থাকলেও পরিবারের অর্থনৈতিক দুর্দশার কারণে সেটি আর সম্ভব হয়নি। পড়াশুনার স্বপ্ন অধরাই থেকে গেছে রবিনের

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডায়ালাইসিসের খরচ সম্পর্কে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আগে বিরাট একটি জনগোষ্ঠীকে বিনামূল্য ডায়ালাইসিস সেবা দিতাম তবে এখন আর সেটা সম্ভবপর নয় তবে আমরা নামমাত্র মূল্যে রোগীদের সেবা দিয়ে থাকি

তিনি বলেন, গণস্বাস্থ্য থেকে প্রতিদিন প্রায় ৩০০ লোক ডায়ালাইসিস করে দরিদ্র মানুষরা এখান থেকে খুব অল্প টাকায় চিকিৎসা পায় অন্যান্য হাসপাতালের ডায়ালাইসিসের খরচ সম্পর্কে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, তারা ব্যবসায়িক মনোবৃত্তি থেকে বেশি টাকা রাখছে রোগীদের কাছ থেকে

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে ডায়ালাইসিস বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত) মামুন মোস্তাফি আমাদের কাগজকে বলেন, গণস্বাস্থ্য ডায়ালাইসিস সেন্টার আমাদের দেশের সবচেয়ে বড় ডায়ালাইসিস সেন্টার আমরা বিশ্বমানের ডায়ালাইসিস সেবা রোগীদের দিয়ে থাকি নামমাত্র মূল্যে

তিনি বলেন, আমরা সর্বোচ্চ ২৫০০ টাকা থেকে শুরু করে বিনা পয়সায়ও ডায়ালাইসিস সেবা দিয়ে থাকি

অন্যান্য হাসপাতালে ডায়ালাইসিস খরচ এতো বেশি কেনো এমন প্রশ্নের উত্তরে ডা. মোস্তাফি বলেন, আমাদের এখানে ব্যবসায়িক কোনো স্বার্থ নেই কিন্ত বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে ব্যবসায়িক স্বার্থ আছে তাই সেসব হাসপাতালে খরচ বেশি

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে ডায়ালাইসিসের খরচ ৫৫০০ টাকা,

ল্যাবএইড হাসপাতালে  ৪০০০, স্কয়ার হাসপাতালে ৫৩০০, গ্রীণলাইফ হাসপাতালে  ৪০০০আসগর আলী হাসপাতালে ৪৬০০ টাকা এছাড়া অন্যান্য বেসরকারি হাসপাতালেও ডায়ালাইসিস করতে থেকে হাজার টাকা খরচ হয়

অন্যদিকে রাজধানীর গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডায়ালাইসিস সেন্টারে সামাজিক শ্রেণীর ভিত্তিতে স্বাস্থ্যবীমা করে চিকিৎসা নিতে পারেন রোগীরা ডায়ালাইসিস করার পূর্বে স্বাস্থ্য বীমা করার জন্য রোগীর আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করা হয় যদিও পূর্বে হতদরিদ্রদের কাছ থেকে কোনো প্রকার টাকা পয়সা নেয়া হতো না কিন্তু আর সে ব্যবস্থা নেই এখন নামমাত্র মূল্য চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে

গণস্বাস্থ্যের এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, তারা বর্তমানে বিভিন্ন দাতব্য প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির আর্থিক সহায়তায় ৫৩ জনকে বিনামূল্যে, ৩০০ টাকায় ৩৫ জনকে, ২০০ টাকায় জনকে অতি দরিদ্রদের ৭০০ টাকায় ডায়ালাইসিস সেবা দিচ্ছে।

ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন