অপরাধ ও দুর্নীতি ১৩ জানুয়ারি, ২০২১ ০৭:০৬

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

গত ৯ জানুয়ারি দৈনিক আমাদের কাগজ পত্রিকায় "রশিদ জালিয়াতি করে ঢাকা ট্যাক্সেস বারের চাঁদার টাকা হরিলুট" শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকা ট্যাক্সেস বার এসোসিয়েশন।

ট্যাক্সেস বারের পাঠানো প্রতিবাদ লিপিতে বলা হয়েছে, 'দৈনিক আমাদের কাগজে প্রকাশিত সংবাদটিতে যে তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে তা সম্পূর্ণরূপে অসত্য, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। উক্ত সংবাদে প্রকাশিত হয় যে, "সদস্যদের চাঁদা ও নবায়ন ফি ব্যাংকের মাধ্যমে লেনদেনের কথা থাকলেও বারের একটি জালিয়াত চক্র কৌশলে টাকা পরিষদের সিল দিয়ে ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এ চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ পন্থা অবলম্বন ট্যাক্সেস বারের সদস্যদের সাথে প্রতারণা করে আসছিল। এতোদিন তারা খুব সুসংগঠিতভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করায় বিষয়টি কারো নজরে আসেনি। তবে সাম্প্রতিক সময়ে চক্রটির ভেতরে টাকা লেনদেনের বিষয়ে কোন্দল সৃষ্টি হলে বিষয়টি সবার নজরে আসে।" যা সম্পূর্ণরূপে অসত্য ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। প্রকৃতপক্ষে, ঢাকা ট্যাক্সেস বার এসোসিয়েশনে চাকুরীরত অবস্থায় বারের স্টাফ আকতার ফিরোজ রাসেল কর্তৃক অত্র বারের একজন সদস্যের চাঁদার ভুঁয়া রিসিট দেওয়া ও তা সদস্য রেজিষ্টারে লিপিবদ্ধ করার অভিযোগের ভিত্তিতে তা তদন্ত পূর্বক উক্ত অভিযোগের সত্যতা প্রমাণিত হয়। অধিকিন্তু আকতার ফিরোজ রাসেল লিখিতভাবে স্বীকারোক্তি প্রদান করেন বিধায় অত্র বারের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুফী মোহাম্মদ আল মামুন বাদী হয়ে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে রমনা মডেল থানা, ঢাকায় মামলা করে অভিযুক্ত আকতার ফিরোজ রাসেলকে আইনের আওতায় নিয়ে আসেন, যা বর্তমানে বিজ্ঞ আদালতে প্রক্রিয়াধীন আছে। 

h

এ ধরনের মিথ্যা তথ্য উদ্দেশ্যমূলকভাবে প্রকাশ করে প্রকারান্তরে ১৯৫০ সালে প্রতিষ্ঠিত ঢাকা ট্যাক্সেস বার এসোসিয়েশনের সুনামকে ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে বিধায় ঢাকা ট্যাক্সেস বার এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জ্ঞাপন করছি।'