অপরাধ ও দুর্নীতি ৪ মার্চ, ২০২১ ০৩:৪৫

পেশা বদলে যেভাবে তারা নাম লেখান মলমপার্টি-ছিনতাইয়ে

ডেস্ক রিপোর্ট

বিভিন্ন দোকানের কর্মচারী বা অন্যন্য কাজ করে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করতেন কিন্তু বর্তমান সময়ে আয় কমে যাওয়ায় পেশা বদলে নাম লেখান মলমপার্টি-ছিনতাইয়ে। ঝুঁকি জেনেও বাসের যাত্রীদের টার্গেট করে ছিনতাই চালিয়ে আসছিলেন তারা

বুধবার (৩ মার্চ) রাজধানীর উত্তরা-আবদুল্লাহপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ছিনতাই ও মলমপার্টির সাত সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)

বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) দুপুরে সিআইডির সদর দপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদসম্মেলনে এ তথ্য জানান সিআইডির ঢাকা মেট্রোর অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ ওমর ফারুক

তিনি বলেন, গ্রেফতাররা আগে অন্যান্য পেশায় যুক্ত ছিলেন কিন্তু আয়-রোজগার কম হওয়ায় ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও দ্রুত বেশি টাকা আয় করার জন্য যুক্ত হয় মলমপার্টিতে মলমপার্টির এ সক্রিয় সদস্যরা একত্রিত হয়ে কৌশলে সহজ-সরল যাত্রীদের টার্গেট করে চেতনানাশক ওষুধ ও মলম প্রয়োগ করে টাকা ও মূল্যবান মালামাল ছিনিয়ে নেয়

সিআইডির এ কর্মকর্তা বলেন, চক্রটি কোথাও অভিযান চালানোর আগে তারা রেকি করে নেয় এছাড়া তারা যে বাসে অপারেশন করে সেই বাসের কন্ট্রাক্টরও অনেক সময় বিষয়টি অবগত থাকেন তাকেও এ টাকার ভাগ দেওয়া হয়

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সিআইডির এ কর্মকর্তা বলেন, মলমপার্টির সংখ্যা কত এমন পরিসংখ্যান এই মুহূর্তে আমার কাছে নেই তবে আমরা নিয়মিত অভিযান চালিয়ে তাদের নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করবো

এ চক্রের আটজন সদস্য ছিলো তাদের মধ্যে একজন পালিয়ে গেছেন বলেও জানান সিআইডির এ কর্মকর্তা

গ্রেফতাররা হলেন- মূলহোতা স্বপন (৫২), ফিরোজ (৪০), মাসুদ রানা (৫১), শহীদুল ইসলাম (৫১), জাকির হোসেন জাকির (৫৫), শহীদুল ইসলাম ওরফে শহীদুল (৩৩) ও হাবিবুর রহমান সিরাজ ওরফে সিরাজ মুন্সী (৫০)

এ সময়ে তাদের কাছ থেকে চারটি প্লাস্টিকের ছোট কৌটা ভর্তি মলম, ছোট একটি প্লাস্টিকের কৌটায় টাইগার বাম জাতীয় মলম, একটি স্টিলের ছোট কাঁচি, ১০ টি ঘুমের ওষুধ জব্দ করা হয়