সাক্ষাৎকার ২৮ জুলাই, ২০১৯ ০৬:৩৯

ডেঙ্গু রোগ নির্ণয়ে টেস্টের মূল্য নির্ধারণ

ডেঙ্গু আক্রান্তের গত ১৯ বছরের রেকর্ড ভেঙেছে। গতকাল পর্যন্ত সরকারি হিসাবে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ হাজার ৫২৮। এর আগে গত বছর সর্বোচ্চ রোগী ছিল ১০ হাজার ১৪৮ জন। তবে বেসরকারি হিসাবে সারা দেশে লাখ ছাড়িয়েছে। সরকারি হিসাবে মৃতের সংখ্যা আট বলা হলেও বিভিন্ন হাসপাতালে ৩৩ জনের মৃত্যুসনদে কারণ হিসেবে ডেঙ্গুজ্বর উল্লেখ করা হয়েছে। 

রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায়, গত তিন সপ্তাহ ধরে হাসপাতালগুলোয় ভর্তি রোগীর ৯০ ভাগই ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত। রাজধানীতে ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ মোকাবেলার লক্ষ্যে ঢাকার প্রাইভেট হাসপাতাল, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার সমূহের পরিচালক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের সাথে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের 'ডেঙ্গু রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা' সংক্রান্ত জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্ত্বে স্বাস্থ্য ভবনের সম্মেলন কক্ষে এই জরুরী সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। 

ডেঙ্গু আক্রান্তের গত ১৯ বছরের রেকর্ড ভেঙেছে। গতকাল পর্যন্ত সরকারি হিসাবে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ হাজার ৫২৮। এর আগে গত বছর সর্বোচ্চ রোগী ছিল ১০ হাজার ১৪৮ জন। তবে বেসরকারি হিসাবে সারা দেশে লাখ ছাড়িয়েছে। সরকারি হিসাবে মৃতের সংখ্যা আট বলা হলেও বিভিন্ন হাসপাতালে ৩৩ জনের মৃত্যুসনদে কারণ হিসেবে ডেঙ্গুজ্বর উল্লেখ করা হয়েছে। 

রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায়, গত তিন সপ্তাহ ধরে হাসপাতালগুলোয় ভর্তি রোগীর ৯০ ভাগই ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত। রাজধানীতে ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ মোকাবেলার লক্ষ্যে ঢাকার প্রাইভেট হাসপাতাল, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার সমূহের পরিচালক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের সাথে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের 'ডেঙ্গু রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা' সংক্রান্ত জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্ত্বে স্বাস্থ্য ভবনের সম্মেলন কক্ষে এই জরুরী সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।