২০ মার্চ, ২০২১ ০১:০৬

গ্রামীণ ইউনিক্লো এর ১০ বছর

ডেস্ক রিপোর্ট

বাংলাদেশের খুচরা পোশাক বিক্রয় খাতে ইউনিক্লো সোস্যাল বিজনেস লিঃ প্রতিষ্ঠার ১০ বছর উদযাপন করছে। বাংলাদেশের সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশে ‘গ্রামীণ ইউনিক্লো’ যাত্রা শুরু করেছে ১০ বছর আগে।

শুরুতে ব্র্যান্ডটি গ্রামের মহিলাদের মধ্যে ১ ডলারে পোশাক বিক্রয়ের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে । ২০১৩ সালের জুলাই মাসে ১ম শোরুম ওপেন এর মাধ্যমে সরাসরি পোশাক ব্যবসায় যুক্ত হয়।

প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ব্র্যান্ডটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হক বলেন, বাংলাদেশের মানুষের লাইফ স্টাইল পরিবর্তনের জন্য ও সমাজের কল্যাণের জন্য প্রতিনিয়ত আমাদের যে প্রচেষ্টা সেটি এক দিনের নয়। আজকের যে অর্জন সেটির যাত্রা শুরু ২০১০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। আমরা শুরুতে গ্রামের মহিলাদের মধ্যে স্বাস্থ্য সচেতনা সৃষ্টির লক্ষে স্যানিটারি প্রডাক্ট ও পোশাক সেল করতাম।  এর পর আমরা ২০১৩ সালে আরও অধিকতর ভাবে সামগ্রিক বাংলাদেশের মানুষের জীবন ধারা উন্নয়নের জন্য প্রথম ২ টি স্টোরের মাধ্যমে তৈরি পোশাক বিক্রয়ের মূলধারার  সামাজিক ব্যবসায় এর যাত্রা শুরু করে। স্টোরের যাত্রা শুরুর পর থেকে অপেক্ষাকৃত সাশ্রয়ী মূল্যে বিভিন্ন ইউনিক ও ফাংশনাল পোশাক, ব্যতিক্রমী স্টোর ব্যবস্থাপনার ও জাপানিজ মান নিয়ন্ত্রন এবং তত্বাবধায়ণ এর মাধ্যমে বিক্রয় করে আসছি। ব্যবসায় থেকে অর্জিত মুনাফা পুরোপুরি ভাবে আমরা ব্যবসায় সম্প্রসারণ, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও সামাজিক উন্নয়নে ব্যয় করছি। আমাদের মুল নীতি কমর্ফোটেবল. আমরা নিশ্চিত করতে চেষ্টা করছি কমর্ফোটেবল পোশাক, কমর্ফোটেবল শপ ও কমর্ফোটেবল লাইফ স্টাইল।

বর্তমানে ঢাকা ও আশেপাশের শহরে শোরুম থাকলেও আমরা আমাদের এই সামাজিক ব্যবসার অবদান সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে চাই। আমরা ভবিষ্যতে তিনটি উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করব। প্রথমত, প্রতিষ্ঠানে কর্মরত মানবসম্পদকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বিশ্ববাজারের উপযোগী মানবসম্পদে পরিনত করা ও সর্বোচ্চ মানের কর্মপরিবেশ প্রদানের মাধ্যমে আদর্শ প্রতিষ্ঠানে পরিনত হওয়া। দ্বিতীয়ত দেশীয় পোশাক শিল্পের প্রযুক্তি, উৎকর্ষতা ও কমপ্লাইয়েন্স উন্নয়নের জন্য একসাথে কাজ করা ও  গার্মেন্টস শিল্পে নিয়োজিত মানব সম্পদকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান করা যা সুস্থ ও সঠিক জীবন  যাপনে সহায়তা করবে। তৃতীয়ত, অসহায় ও দুস্থ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতা করা এবং এর মাধ্যমে তাদের নিজের পায়ে দাঁড়াতে সহযোগিতা করা ।

বিভিন্ন ফাংশনাল পোশাকের মাধ্যমে জীবন ধারা পরিবর্তণের বিশেষ প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে  নতুন অনেক কালেকশন যুক্ত হয়েছে যার মধ্যে ইউ ভি প্রোটেকশন কামিজ যা সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে। নন আয়রন স্পেশাল  ইজি কেয়ার শার্ট ও জাপানের বিখ্যাত কাহিকারা ডেনিম এছাড়াও রয়েছে ড্রাই কালেকশন, সফট এন্ড স্ট্রেস কালেকশন, স্ট্রেস প্যান্টস ও ৯৯০ টাকার সাশ্রয়ী মূল্যের শার্ট সহ আরও অনেক নতুন কালেকশন ।

এছাড়া ক্রেতাদের কেনাকাটায় স্ক্র্যাচ কার্ডের মাধ্যমে থাকছে শর্তসাপেক্ষে ৮০% পর্যন্ত ছাড় ও বিভিন্ন গিফট।

এছাড়াও বিভিন্ন আইটেমে থাকবে ছাড়। অফার গুলো পাবেন যে কোন স্টোর অথবা ফেসবুক থেকে কেনাকাটায়। বর্তমানে গ্রামীণ ইউনিক্লোর স্টোরগুলো রয়েছে বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক, ধানমন্ডি সাইন্সল্যাব মোড়, কাঁটাবন মোড়, খিলগাঁও তালতলা, নয়াপল্টন, মোহাম্মদপুর রিং রোড, ধানমন্ডি মেট্রো শপিং মল, যাত্রাবাড়ি শহীদ ফারুক রোড, ওয়ারী র‌্যাংকিন স্ট্রিট, গুলশান বাড্ডা লিংক রোড, সাভার সিটি সেন্টার, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, বেইলি রোড, জয়দেবপুর বাজার রোড এবং নরসিংদী বৌয়াকুঢ় মোড়ে।

ডেস্ক রিপোর্ট

বাংলাদেশের খুচরা পোশাক বিক্রয় খাতে ইউনিক্লো সোস্যাল বিজনেস লিঃ প্রতিষ্ঠার ১০ বছর উদযাপন করছে। বাংলাদেশের সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশে ‘গ্রামীণ ইউনিক্লো’ যাত্রা শুরু করেছে ১০ বছর আগে।

শুরুতে ব্র্যান্ডটি গ্রামের মহিলাদের মধ্যে ১ ডলারে পোশাক বিক্রয়ের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে । ২০১৩ সালের জুলাই মাসে ১ম শোরুম ওপেন এর মাধ্যমে সরাসরি পোশাক ব্যবসায় যুক্ত হয়।

প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ব্র্যান্ডটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হক বলেন, বাংলাদেশের মানুষের লাইফ স্টাইল পরিবর্তনের জন্য ও সমাজের কল্যাণের জন্য প্রতিনিয়ত আমাদের যে প্রচেষ্টা সেটি এক দিনের নয়। আজকের যে অর্জন সেটির যাত্রা শুরু ২০১০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। আমরা শুরুতে গ্রামের মহিলাদের মধ্যে স্বাস্থ্য সচেতনা সৃষ্টির লক্ষে স্যানিটারি প্রডাক্ট ও পোশাক সেল করতাম।  এর পর আমরা ২০১৩ সালে আরও অধিকতর ভাবে সামগ্রিক বাংলাদেশের মানুষের জীবন ধারা উন্নয়নের জন্য প্রথম ২ টি স্টোরের মাধ্যমে তৈরি পোশাক বিক্রয়ের মূলধারার  সামাজিক ব্যবসায় এর যাত্রা শুরু করে। স্টোরের যাত্রা শুরুর পর থেকে অপেক্ষাকৃত সাশ্রয়ী মূল্যে বিভিন্ন ইউনিক ও ফাংশনাল পোশাক, ব্যতিক্রমী স্টোর ব্যবস্থাপনার ও জাপানিজ মান নিয়ন্ত্রন এবং তত্বাবধায়ণ এর মাধ্যমে বিক্রয় করে আসছি। ব্যবসায় থেকে অর্জিত মুনাফা পুরোপুরি ভাবে আমরা ব্যবসায় সম্প্রসারণ, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও সামাজিক উন্নয়নে ব্যয় করছি। আমাদের মুল নীতি কমর্ফোটেবল. আমরা নিশ্চিত করতে চেষ্টা করছি কমর্ফোটেবল পোশাক, কমর্ফোটেবল শপ ও কমর্ফোটেবল লাইফ স্টাইল।

বর্তমানে ঢাকা ও আশেপাশের শহরে শোরুম থাকলেও আমরা আমাদের এই সামাজিক ব্যবসার অবদান সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে চাই। আমরা ভবিষ্যতে তিনটি উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করব। প্রথমত, প্রতিষ্ঠানে কর্মরত মানবসম্পদকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বিশ্ববাজারের উপযোগী মানবসম্পদে পরিনত করা ও সর্বোচ্চ মানের কর্মপরিবেশ প্রদানের মাধ্যমে আদর্শ প্রতিষ্ঠানে পরিনত হওয়া। দ্বিতীয়ত দেশীয় পোশাক শিল্পের প্রযুক্তি, উৎকর্ষতা ও কমপ্লাইয়েন্স উন্নয়নের জন্য একসাথে কাজ করা ও  গার্মেন্টস শিল্পে নিয়োজিত মানব সম্পদকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান করা যা সুস্থ ও সঠিক জীবন  যাপনে সহায়তা করবে। তৃতীয়ত, অসহায় ও দুস্থ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতা করা এবং এর মাধ্যমে তাদের নিজের পায়ে দাঁড়াতে সহযোগিতা করা ।

বিভিন্ন ফাংশনাল পোশাকের মাধ্যমে জীবন ধারা পরিবর্তণের বিশেষ প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে  নতুন অনেক কালেকশন যুক্ত হয়েছে যার মধ্যে ইউ ভি প্রোটেকশন কামিজ যা সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে। নন আয়রন স্পেশাল  ইজি কেয়ার শার্ট ও জাপানের বিখ্যাত কাহিকারা ডেনিম এছাড়াও রয়েছে ড্রাই কালেকশন, সফট এন্ড স্ট্রেস কালেকশন, স্ট্রেস প্যান্টস ও ৯৯০ টাকার সাশ্রয়ী মূল্যের শার্ট সহ আরও অনেক নতুন কালেকশন ।

এছাড়া ক্রেতাদের কেনাকাটায় স্ক্র্যাচ কার্ডের মাধ্যমে থাকছে শর্তসাপেক্ষে ৮০% পর্যন্ত ছাড় ও বিভিন্ন গিফট।

এছাড়াও বিভিন্ন আইটেমে থাকবে ছাড়। অফার গুলো পাবেন যে কোন স্টোর অথবা ফেসবুক থেকে কেনাকাটায়। বর্তমানে গ্রামীণ ইউনিক্লোর স্টোরগুলো রয়েছে বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক, ধানমন্ডি সাইন্সল্যাব মোড়, কাঁটাবন মোড়, খিলগাঁও তালতলা, নয়াপল্টন, মোহাম্মদপুর রিং রোড, ধানমন্ডি মেট্রো শপিং মল, যাত্রাবাড়ি শহীদ ফারুক রোড, ওয়ারী র‌্যাংকিন স্ট্রিট, গুলশান বাড্ডা লিংক রোড, সাভার সিটি সেন্টার, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, বেইলি রোড, জয়দেবপুর বাজার রোড এবং নরসিংদী বৌয়াকুঢ় মোড়ে।


আরো খবর