আইন ও আদালত ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১১:৫৬

ক্যাসিনোর টেবিলে প্রতি রাতে উড়ত শত কোটি টাকা

ডেস্ক রিপোর্ট।। 

একটি বড় ক্যাসিনোতেই দিনে ১০ থেকে ১৫ কোটি টাকার জুয়ার ব্যবসা চলে।  রাজধানীতে এমন ক্যাসিনোর সংখ্যা আছে ৬০ টি। গড়ে ২ কোটি ধরলেও প্রতিদিন শতকোটির ওপরে টাকা উড়ছে এসব ক্যাসিনোর বোর্ডে। সর্বস্বান্ত হচ্ছে একশ্রেণীর মানুষ। আর টাকার পাহাড় গড়ছে ক্ষমতাসীন দলের ছত্রছায়ায় থাকা কিছু লুটেরা।

রাজধানীর মতিঝিল থানা সংলগ্ন ইয়ং ম্যানস ক্লাব। মূলত এটি ফুটবল ক্লাব হলেও, ফুটবলের নামগন্ধও খুঁজে পাওয়া যাবেনা কোথাও। বরং পুরো ক্লাবটি হয়ে উঠেছিল জুয়ারীদের স্বর্গরাজ্য। বিভিন্ন ধরণের জুয়া খেলার পাশাপাশি মদ্যপানেরও সুযোগ ছিল এখানে।  এক ধরনের জুয়ার বোর্ডে বসতেই হতো কমপক্ষে ২০ হাজার টাকা নিয়ে।

যুবলীগ নেতা খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার মালিকানাধীন এই ক্যাসিনোটি চালানো হতো নেপালের প্রশিক্ষিত জুয়া কারবারী দিয়ে। তবে, এই ক্যাসিনোতে প্রতিদিন কত কোটি টাকার ব্যবসা হতো সে বিষয়টি পরিষ্কার হওয়া যায়নি।

টাকার হিসাব পাওয়া গেল ইয়ং ম্যানস ক্লাবের ঠিক পাশেই ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাবে। এই ক্লাবের জুয়ার ব্যবসা আরও রমরমা। রুল্যাট, পোকার, ব্ল্যাকজ্যাকসহ বিভিন্ন ধরণের ১০ থেকে ১৫ বোর্ডে বসতো জুয়ার আসর। এখানে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসা এক কর্মচারীর কাছে জানা গেল কার ছত্রছায়ায় এই ক্যাসিনো চলতো এবং দিনে কত টাকার ব্যবসা হতো এখানে।

সেই কর্মচারী জানান দিনে সর্বনিম্ন ১০ কোটি এবং সর্বোচ্চ ১৫ কোটি টাকার জুয়া খেলা হতো এই ক্যাসিনোটিতে।