আইন ও আদালত ১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০৪:৫৮

সম্রাটকে নেয়া হয়েছে র‌্যাব-১ এ

ডেস্ক রিপোর্ট।। 

ক্যাসিনো-কাণ্ডে গ্রেফতার বহিষ্কৃত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের মামলার তদন্তভার গতকাল বুধবার রাতে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) থেকে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সে অনুযায়ী সম্রাটকে জিজ্ঞাবাদের জন্য আজ বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় সম্রাটকে ডিবি কার্যালয় থেকে র‌্যাব-১ এর কার্যালয়ে নেয়া হয়েছে।

র‍্যাবের আইন ও গগণমাধ্যম শাখার সিনিয়র সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, সম্রাটের বিরুদ্ধে রমনা থানায় দায়ের করা মাদক ও অস্ত্র মামলার তদন্ত করছিল ডিবি। এখন থেকে মামলা দুটি তদন্ত করবে র‍্যাব। তদন্তের আদেশ পাওয়ার পর সম্রাটকে ডিবি কার্যলয় থেকে র‌্যাব-১ এর কার্যলয়ে আজ বিকেল ৪টায় নিয়ে আসা হয়েছে।

গত ৭ অক্টোবর সম্রাটের বিরুদ্ধে দুটি মামলা দায়ের করে র‍্যাব। সম্রাটকে দুই মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড চলাকালীন বুধবার মামলার তদন্তভার র‍্যাবকে দেওয়া হলো।

৯ অক্টোবর সম্রাটকে গ্রেফতার দেখানো ও ২০ দিনের রিমান্ড শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল। ওইদিন শারীরিক অসুস্থতার কারণে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে ভর্তি থাকায় সম্রাটকে আদালতে হাজির করা সম্ভব হচ্ছে না বলে আদালতকে চিঠি দেন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার ইকবাল কবির চৌধুরী।

৮ অক্টোবর বুকে ব্যথা অনুভব করলে সকাল সাড়ে ৭টায় সম্রাটকে কারাগার থেকে প্রথমে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়। এরপর ঢামেক চিকিৎসকদের পরামর্শে তাকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে নিয়ে আসে কারা কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, গত ৬ অক্টোবর ভোর ৫টার দিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম থেকে সম্রাটকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার সহযোগী আরমানকেও গ্রেফতার করে র‌্যাব।

এরপর সম্রাটের তথ্যের ভিত্তিতে তাকে সঙ্গে নিয়ে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই দিন দুপুরে তার কার্যালয় কাকরাইলের ভূঁইয়া ট্রেড সেন্টারে অভিযান চালান। সেখান থেকে পিস্তল, গুলি, ইয়াবা বড়ি, বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়া দুটি ক্যাঙ্গারুর চামড়া, বৈদ্যুতিক শক দেয়ার দুটি যন্ত্র ও লাঠি উদ্ধার করা হয়।