উন্নয়ন সংবাদ ৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০২:৫৪

বুধবার ২৩ উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট ।।

বুধবার (১৩ নভেম্বর) আরো ২৩ উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে ২১১ উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন নিশ্চিত হয়েছে।

উদ্বোধনের জন্য প্রায় চূড়ান্ত ধাপে রয়েছে আরো ১১৯ উপজেলা। আগামী জুনের মধ্যেই সবার ঘরে বিদ্যুতায়ন নিশ্চিত করতে চায় সরকার। আওয়ামী লীগ ২০০৮ সালের নির্বাচনী ইশতেহারে ২০২১ সালের মধ্যে সবার ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। নির্ধারিত সময়ের বছর খানেক পূর্বেই সেই নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পূরণ হতে চলছে বলে নিশ্চিত করেছেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

অবশিষ্ট ১০৮ উপজেলায় বিদ্যুতায়নের জন্য দু'টি প্রকল্প চলমান রয়েছে। এর মাধ্যমে ৪৮ হাজার কিলোমিটার লাইনের মাধ্যমে ২২ লাখ গ্রাহককে সংযোগ দেওয়া হবে। এরমধ্যে দুর্গম চরাঞ্চলেও নির্মাণাধীন রয়েছে ১৯ হাজার কিলোমিটার।

পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড ১ হাজার ৬৯টি বিচ্ছিন্ন গ্রাম চিহ্নিত করেছে। এসব গ্রামে গ্রিডের মাধ্যমে বিদ্যুতায়ন করা জটিল এবং ব্যয়বহুল। এরমধ্যে ৬২০টি গ্রামে জুনের মধ্যে গ্রিড নির্মাণ করে বিদ্যুতায়ন করা সম্ভব হবে। অবশিষ্ট থাকবে ৪৪৯ গ্রাম। এসব গ্রামে স্রেডা (টেকসই ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ) বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানিগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে নবায়নযোগ্য জ্বালানির মাধ্যমে বিদ্যুতায়ন করবে।

বুধবার উদ্বোধন হতে যাওয়া উপজেলাগুলো হচ্ছে বগুড়ার গাবতলী, শেরপুর ও শিবগঞ্জ, গাইবান্ধার ফুলছড়ি, গাইবান্ধা সদর ও পলাশবাড়ি, ফরিদপুরের মধুখালী, নগরকান্দা ও সালথা, চট্টগ্রামের লোহাগড়া, হবিগঞ্জের মাধবপুর ও নবীগঞ্জ, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ ও মহেষপুর, কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ, নাটোরের বড়াইগ্রাম, লালপুর ও সিংড়া, নেত্রকোনার বারহাট্টা ও মোহনগঞ্জ, পিরোজপুরে ভান্ডারিয়া, কাউখালী ও ইন্দুরকানি।

গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শতভাগ বিদ্যুতায়ন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। একই অনুষ্ঠানে নব নির্মিত ৭টি বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের উদ্বোধন করার প্রস্তুতি নিয়েছেন বিদ্যুৎ বিভাগ। এগুলো হচ্ছে শিকলবাহা ১০৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র, আনোয়ারা ৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র, তেতুলিয়া ৮ মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্র, রংপুর ১১৩ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র, পটিয়া ১১০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র ও গাজীপুর ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র।

২০০৮ সালে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার ঘোষণাকে অনেকেই রাজনৈতিক স্ট্যান্ডবাজি মনে করেছিলেন। সাধারণ জনগণ দূরের কথা বিদ্যুৎ-জ্বালানি বিশেষজ্ঞরাও এ কথা বিশ্বাস করতে চাননি তখন। অনেকে মন্তব্য করেছিলেন, রাজনৈতিক দলগুলো ভোটের সময় কত প্রতিশ্রুতি দেয়, বাস্তবায়নতো সামান্যই হয়ে থাকে।

কিন্তু মাত্র এক দশকের ব্যবধানে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ এখন সময়ের ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর মাত্র ৭ মাসের মধ্যেই ( জুন ২০২০) সবার ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে বলে নিশ্চিত করেছে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়।