বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি ২৮ ডিসেম্বর, ২০২০ ০১:৪৩

যে কারণে তৈরি হয়েছিল ভিপিএন

প্রযুক্তি ডেস্ক

মূলত ডেটা সুরক্ষিত রাখতে ভিপিএন সেবাটি চালু করা হয়েছিল। সম্প্রতি জানা যায়, এরকমই এক ভিপিএন সেবা বন্ধ করে দিতে একত্রে কাজ করেছে এফবিআই ও ইউরোপোল। কারণ জানিয়েছে, ভিপিএনটি তৈরিই হয়েছিল অপরাধীদের ডেটা সুরক্ষার লক্ষ্য নিয়ে।

‘সেইফ-ইনেট’ নামের ওই ‘ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক’ বা ভিপিএনটি ‘ইনসর্গ’ নামেও পরিচিত। প্রযুক্তিবিষয়ক ব্লগ এনগ্যাজেটের প্রতিবেদন বলছে, অপরাধনির্ভর ফোরামে চলত ভিপিএন সেবাটির বিজ্ঞাপন।

উল্লেখ্য, এখন পর্যন্ত কার্ড স্কিমিং, র‌্যানসমওয়্যার এবং অ্যাকাউন্ট হাতিয়ে নেওয়ার মতো কাজে ইনসর্গ ভিপিএন ব্যবহার করেছে হ্যাকাররা। তবে, অপরাধের সঙ্গে ইনসর্গ সরাসরি জড়িত কি না সে ব্যাপারে কিছু বলেননি কর্মকর্তারা। তারা জানিয়েছেন, ইনসর্গ তার আচরণে ‘অন্তত মৌন সম্মতি দিয়েছে’।

ইনসর্গ আদৌ অপরাধীদেরকে নিজ সেবাগ্রহীতা বানানোর চেষ্টা করছিল কি না, সে সম্পর্কিত কোনো প্রমাণ মেলেনি এখনও। মার্কিন বিচার বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, এ ধরনের অনেক সেবা আদতে অপরাধীদের মদদ দেয়। যেমন, কোনো লগ দাখিল না করে, বা ভুক্তভোগী কোনো অভিযোগ করলে তা “এড়িয়ে যাওয়া বা বিভ্রান্তিকর অজুহাত দেওয়া”। যে অপরাধ ঘটছে, তার সঙ্গে “সহ ষড়যন্ত্রকারী” হিসেবে জড়িয়ে যাচ্ছে সেবাগুলো।

ভিপিএন শিল্পের আই২কোয়ালিশন সেবাটিকে নামিয়ে নেওয়ার ঘটনায় সমর্থন জানিয়েছে। ইনসর্গের অনুশীলন আর দশটি ভিপিএনের মতোই। সাধারণত কোনো প্রতিষ্ঠান ভিপিএনের ডেটা সংগ্রহ করে না। এর অন্যতম কারণ হলো, সরকার বা হ্যাকার যাতে ওই ডেটা অপব্যবহার করতে না পারে।