?????? ????? ১২ নভেম্বর, ২০২২ ০৮:২৪

নারীদের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য দিতে হবে: স্পিকার

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, নারীরা যাতে উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য পান সেটা নিশ্চিত করতে হবে। জামানতবিহীন ঋণ সুবিধা নারীদের জন্য বিস্তৃত করা জরুরি।

শনিবার (১২ নভেম্বর) হেরিটেজ পল্লী ও প্রেরণা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে রাজধানীর আলোকি কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত ‘ব্র্যান্ডিং বাংলাদেশ’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মুস্তাফা ওসমান তুরান ও জার্মানীর রাষ্ট্রদূত অখিম ট্রস্টা।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, নারীদের দক্ষতা, মেধা ও মননের সমন্বয়ে অপূর্ব শিল্পকর্মের সৃষ্টি। প্রত্যন্ত অঞ্চলের পিছিয়ে পড়া নারী ও প্রতিবন্ধীদের উৎপাদিত পণ্য কেন্দ্রবিন্দুতে নিয়ে এসে তাদের এগিয়ে নিয়ে যাওয়া জরুরি। এক্ষেত্রে ব্র্যান্ডিং বাংলাদেশ আয়োজনটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে জয়িতা ফাউন্ডেশন নারীদের উৎপাদিত পণ্য ঢাকাসহ সারা দেশে বিক্রয়ের ব্যবস্থা করছে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এক হাজার নারী উদ্যোক্তাকে প্রণোদনা দিয়েছে এবং আরও ৭০০ নারী উদ্যোক্তাকে প্রণোদনা দেবে। নারীদের জীবন-জীবিকা নির্বাহের সঙ্গে ব্র্যান্ডিং বিষয়টি জড়িত। অনলাইন ও ই-কমার্সের সুবিধা ক্ষুদ্র ও মাঝারি নারী উদ্যোক্তাদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে। জামানতবিহীন ঋণ সুবিধা নারীদের জন্য বিস্তৃত করা জরুরি। কোভিডের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত নারীদের এধরনের সুবিধা ও প্রণোদনা দেওয়া প্রয়োজন। তাহলেই কোভিডের ক্ষতি মোকাবিলা করে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব।

তিনি আরও বলেন, সারা বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে নারীরা বিভিন্ন পণ্য তৈরি করছে। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারিভাবেও তাদের অর্থনৈতিক সহযোগিতা প্রয়োজন। তাদের উৎসাহিত করতে সব রকম সুবিধা বিস্তৃত করা দরকার। তাদের উৎপাদিত পণ্যের উন্মুক্ত বাজারে প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে হবে। হেরিটেজ পল্লী ও প্রেরণা ফাউন্ডেশন এক্ষেত্রে ভূমিকা রাখছে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন হেরিটেজ পল্লীর সভাপতি টুটলি রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রেরণা ফাউন্ডেশনের পরিচালক মুবিনা আসাফ প্রমুখ।

আমাদেরকাগজ/  এএইচ