??????? ২৮ নভেম্বর, ২০২২ ০৯:৫৪

ডিসেম্বর মাসেই

বিএনপি জনগণের কাছে আত্মসমর্পণ করে ঘরে উঠে যাবে

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন বলেন, ডিসেম্বর মাস স্বাধীনতার মাস, ডিসেম্বর মাস বঙ্গবন্ধুর মাস, এই ডিসেম্বর মাসে পাকিস্তানের শক্তিশালী বাহিনী বাঙালির জয় বাংলা স্লোগানের কাছে আত্মসমর্পণ করেছিল এবং এই ডিসেম্বর মাসেই বিএনপিরা বাংলার জনগণের কাছে আত্মসমর্পণ করে ঘরে উঠে যাবে।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) বিকালে গাজীপুর সদর মেট্রো থানা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে তিনি একথা বলেন। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়ার বাংলাদেশ মানে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, খুনি ও দূর্ণীতিবাজদের বাংলাদেশ।

তিনি আরো বলেন, ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল এই গাজীপুরের সাংসদ বীর সন্তান শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জুম্মার নামাজের জন্য ঘর থেকে বের হয়েছিলেন, বিএনপি জামাতের সন্ত্রাসীরা বাসার সামনে তাকে গুলি করে হত্যা করে। ঘর থেকে যুবতী মেয়েদের তুলে এনে বাবার সামনে মেয়েকে রেপ করেছে, কারো গোয়ালের গরু ছিল না, পুকুরের মাছ লুট করেছে, জমির ফসল কেটে নিয়ে গেছে এমন কোন অপকর্ম নাই যে তারা করে নাই। দেশটাকে দূর্ণীতিবাজ, চাঁদাবাজ, খুনিদের স্বর্গরাজ্যে পরিণত করেছিল। হাওয়া ভবন আর খোয়াব ভবন তৈরি করে কোটি কোটি টাকা লুট করেছে, দূর্ণীতি করেছে, বিদেশে পাঠিয়েছে।

এসএম কামাল হোসেন বলেন, তাদের (বিএনপি)  বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী আনোয়ার কবির তালুকদার সংবাদ সম্মেলন করে পদত্যাগ করে বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অফিস এবং একটি বিশেষ ভবন মানে হাওয়া ভবনের কারণে ১ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারি নি, বিদ্যুৎ খাতের ৬ হাজার কোটি টাকা লুটপাট করে নিয়ে গেছে। দিনের বেলা হাওয়া ভবনে বসে চাঁদাবাজি, সন্ত্রাস ও লুটপাট করা হতো আর রাতের বেলা খোয়াব ভবনে বসে ফুর্তি করা হতো।

আওয়ামী লীগের এই সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, যে তারেক জিয়ার কারণে বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের সৃষ্টি হয়েছিল, ৫০০ বোমায় দেশের ৬৩ টি জেলা রক্তাক্ত হয়েছিল, উত্তর জনপদে বাংলা ভাইয়ের উত্থান হয়েছিল সেসময় পত্রিকার হেডলাইন হয়েছিল ৮ জন এমপি মন্ত্রী , তারেক জিয়ার নির্দেশে বাংলা ভাইকে সহায়তা করেছিল , ২০০৪ সালের ২১ শে আগষ্ট তারেক রহমান হাওয়া ভবনে বসে একাত্তরের খুনি ও যুদ্ধাপরাধী এবং পঁচাত্তরের খুনিদের নিয়ে ষড়যন্ত্র করে গণতন্ত্রের মানসকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে শান্তি সমাবেশে ১৩ টি গ্ৰেনেড নিক্ষেপ করেছিল নারী নেত্রী আইভী রহমান সহ ২২ জন নেতাকর্মী শহীদ হয়েছিল , ইত্তেফাকের হেডলাইন ছিল ২২ হাজার কোটি টাকা লুটপাট করে তারেক রহমান বিদেশে পাচার করেছেন , সেই তারেক রহমানের বাংলাদেশ মির্জা ফখরুলরা কায়েম করতে চায়। 

এস এম কামাল হোসেন বলেন , বিএনপি বাংলাদেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্বে বিশ্বাস করে না, বাংলাদেশের উন্নয়নে বিশ্বাস করে না। তাইতো মির্জা ফখরুলরা বলেন পাকিস্তান আমলেই ভালো ছিলাম। আরে যারা পাকিস্তান মতাদর্শে বিশ্বাসী, যাদের মনে প্রাণে পাকিস্তান তাদের স্বাধীন,সার্বভৌম ও উন্নয়নের বাংলাদেশ দেখে গা জ্বালা করবে এটাই স্বাভাবিক। 

তিনি আরো বলেন, মির্জা ফখরুল বলেন ডিসেম্বর মাস খালেদা জিয়ার মাস, ডিসেম্বর মাস তারেক জিয়ার মাস। মির্জা ফখরুল ভুলে গেছেন, এই ডিসেম্বর মাস মুক্তিযুদ্ধের মাস, ডিসেম্বর মাস স্বাধীনতার মাস, ডিসেম্বর মাস বঙ্গবন্ধুর মাস, এই ডিসেম্বর মাসে পাকিস্তানের শক্তিশালী বাহিনী বাঙালির জয় বাংলা স্লোগানের কাছে আত্মসমর্পণ করেছিল এবং এই ডিসেম্বর মাসেই বিএনপিরা বাংলার জনগণের কাছে আত্মসমর্পণ করে ঘরে উঠে যাবে।

উক্ত সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান সহ অনেকে।

আমাদেরকাগজ/ এএইচ