???? ? ???? ২৩ জানুয়ারি, ২০২৩ ০৪:৪৩

বিশ্ব ইজতেমায় বিদেশি মুসল্লিসহ ৯ জনের মৃত্যু

ছবি - সংগৃহীত

ছবি - সংগৃহীত

আমাদের কাগজ রিপোর্টঃ ৯ জনের মৃত্যু দিয়ে শেষ হলো এবারের বিশ্ব ইজতেমা। গতকাল রবিবার (২২ জানুয়ারি) আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার। 

সব ঠিক থাকলেও, ইজতেমায় শরিক হতে এসে এক বিদেশিসহ নয় মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। সর্বশেষ আখেরি মোনাজাতের আগে মারা যান হাফেজ আবু বকর (৬০)। তিনি চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার অলিপুর গ্রামের বাসিন্দা। বেলা ১১টার দিকে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

ছাড়া ইজতেমায় বাকি নিহত মুসল্লিরা হলেন- সিরাজগঞ্জের কাজীপুর উপজেলার লক্ষ্মীপুর গ্রামের কাসিম উদ্দিনের ছেলে দলিলুর রহমান (৭৫) ও একই জেলার ভেন্নবাড়ি হরিনারায়ণপুর গ্রামের মীর হোসেন আকন্দের ছেলে জয়নাল আবেদিন (৬০), সিলেটের মুসল্লি আলাউদ্দিন (৭০), সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার রনকালি এলাকার জয়নাল আবেদীন (৫৫), কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার চকলাপাড় গ্রামের নূরুল ইসলাম (৭২), নাটোরের সিংড়া উপজেলার বটিয়া গ্রামের ফরিদ উদ্দিন (৬৫), নোয়াখালীর কবিরপুর উপজেলার সুন্দরপুরের কালা মিয়ার ছেলে আবুল বাশার (৬০) এবং ইন্দোনেশিয়ান নাগরিক পুর্নম সোপান ওরফে সোফা হাজি (৬৭)।

এর মধ্যে প্রথম ইজতেমার ১ম পর্বে মারা গেছেন চারজন এবং দ্বিতীয় পর্বে মৃত্যু হয়েছে পাঁচজনের মৃত্যুর মধ্যে দিয়ে শেষ হলো ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের মুখরোচক ইজতেমা। 

তথ্য অনুযায়ী, প্রায় ৩০ লাখ মুসল্লিদের উপস্থিতে শেষ হয়েছে ২০২৩ বিশ্ব ইজতেমা। এছাড়া, ইজতেমা ময়দানে মুসল্লিদের সার্বক্ষণিক চিকিৎসা, ওষুধপত্র সরবরাহসহ জরুরি অ্যাম্বুলেন্সের বিশেষ ব্যবস্থা রেখেছিলো স্বাস্থ্য বিভাগ। 

স্বাস্থ্য বিভাগের নেতৃত্বে ৬টি কেন্দ্রে ২৪ ঘণ্টা সার্বক্ষণিক চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করা হয়েছে।জানা যায়, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে তুরাগ নদীর উত্তর পাশে আর রেড ক্রিসেন্টের সহায়তায় দক্ষিণ পাশে চিকিৎসা কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছে।

সব শেষ উল্লেখিত বিষয় হচ্ছে, এবারের ইসতেমায় ভিড় এড়াতে ১০ টাকায় অজু, কাগজের জায়নামাজ বিক্রির মতো ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়ে কিছু হকার আমাদের কাগজকে বলেছিলেন,মানুষের ভিড়ে জায়গা পাওয়া যাবে না ইজতেমার মূল মাঠে। মুসল্লিরা যাতে যে কোনো জায়গায় নামাজ পড়ে নিতে পারেন তাই এসব বিক্রি করেছিলেন তারা। 

আমাদের কাগজ/এমটি