অপরাধ ও দুর্নীতি ১২ মার্চ, ২০২৩ ০৯:৩৭

ডাচ্-বাংলার ১১ কোটি টাকা ছিনতাই: নজরদারিতে থাকাদের গ্রেফতার কখন? 

আমাদের কাগজ রিপোর্ট: রাজধানীর উত্তরায় ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেডের সোয়া ১১ কোটি টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িতদের খুঁজতে সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় অভিযান চালাচ্ছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগ। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত সাতজনকে শনাক্ত করেছে ডিবি। তাদেরকে নজরদারিতে রাখা হয়েছে। যেকোনো সময় গ্রেফতার করা হতে পারে বলে বলে জানিয়েছে ডিবি।

গোয়েন্দা পুলিশের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ছিনতাই হওয়া টাকাভর্তি চার ট্রাংকের মধ্যে তিনটি উদ্ধার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয় মানি প্ল্যান্ট লিংক প্রাইভেট লিমিটেড নামের সিকিউরিটি কোম্পানির দুই পরিচালক ও ছিনতাইয়ে জড়িত গাড়ির চালককে। আটকদের জিজ্ঞাসাবাদেও কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া যায়। সেই তথ্যের ওপর ভিত্তি করে ও তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে সারাদেশে অভিযান চালানো হচ্ছে।


নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গোয়েন্দা পুলিশের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানান, টাকা ছিনতাই করে ঢাকা মেট্রো-চ-২০-০৭৫৬ নম্বরের একটি মাইক্রোবাসে পালাচ্ছিলেন ছিনতাইকারীরা। ঘটনার দিন বিকেলে গাড়িসহ চালককে আটক করা হয়। আটক গাড়িচালক এই ছিনতাই পরিকল্পনার সঙ্গে জড়িত।


এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ঢাকার মধ্যে এত বড় ছিনতাইয়ের ঘটনা গুরুত্বের সঙ্গে ছায়া তদন্ত করছে ডিবি। ডিবির একাধিক টিমের একাধিক কর্মকর্তা ঢাকার বাইরে রাত-দিন পরিশ্রম করে যাচ্ছেন জড়িতদের আইনের আওতায় আনার জন্য। জড়িত যেই হোক, তাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

জানতে চাইলে ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত বেশ কয়েকজনকে শনাক্ত করা হয়েছে। তাদেরকে নজরদারিতে রাখা হয়েছে। যেকোনো সময় গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হবে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে শুক্রবার রাত থেকে অভিযান শুরু হয়।

এর আগে ঘটনার দিন (৯ মার্চ) রাতে মানি প্ল্যান্ট লিংক প্রাইভেট লিমিটেডের পরিচালক আলমগীর হোসের বাদী হয়ে ডিএমপির তুরাগ থানায় মামলা করেন। সোয়া ১১ কোটি টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় করা এ মামলায় অজ্ঞাতপরিচয় ১০-১২ জনকে আসামি করা হয়েছে।

গত ৯ মার্চ সকাল ৭টার পরে রাজধানীর উত্তরা ১৬ নম্বর সেক্টরের ১১ নম্বর ব্রিজ সংলগ্ন এলাকা থেকে বেসরকারি ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের টাকা বহনকারী গাড়ি থেকে প্রায় সোয়া ১১ কোটি টাকা ছিনতাই হয়। দিনের আলোতে প্রকাশ্যে রাস্তা থেকে নজিরবিহীন এ ছিনতাইয়ের ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে মাঠপর্যায়ে অভিযানে নামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।


মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানেই উত্তরা এলাকা থেকে ছিনতাই হওয়া টাকাভর্তি চার বক্সের মধ্যে তিনটি উদ্ধারের কথা জানায় মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। ছিনতাইয়ে ব্যবহৃত একটি মাইক্রোবাসসহ এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয় সাতজনকে।