আন্তর্জাতিক ২৪ আগস্ট, ২০২৩ ০৫:৩৯

আনিসা সিদ্দিকাকে মুক্তি দেওয়ার আহ্বান আন্তর্জাতিক সংস্থা অ্যামনেস্টির

ছবি - সংগৃহীত

ছবি - সংগৃহীত

আমাদের কাগজ ডেস্ক: খুলনায় আলোচিত মধ্য বয়সী নারী ৫৮ বছর বয়সী আনিশা সিদ্দিকাকে মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে মানবাধিকার বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। এর আগে, গত ২০ আগস্ট সিদ্দিকাকে ১৯৭৪ সালের কঠোর বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫(৩) (নাশকতা) ও ২৫ (ডি) (নাশকতা চেষ্টার জন্য শাস্তি) ধারায় গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। 

অ্যামনেস্টির ক্যাম্পেইনস ফর সাউথ এশিয়ার ভারপ্রাপ্ত ডেপুটি আঞ্চলিক পরিচালক বাবু রাম পান্ত আবার এ বিবৃতির মাধ্যমে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালকে বিতর্কিত উল্লেখ করে সমালোচনাও করেন।

তিনি বলেন, ছেলের ফেসবুক পোস্টের কারণে আনিসা সিদ্দিকা নামে একজন ৫৮ বছর বয়সী বাংলাদেশি নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাংলাদেশি কর্তৃপক্ষ অনলাইন এবং অফলাইন উভয় জায়গায় বিরোধী মতামত প্রকাশকারীদের প্রতি অসহিষ্ণুতার একটি উদ্বেগজনক প্রবণতা দেখাচ্ছে। সরকারের সমালোচনা করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছেলের পর অবিলম্বে একজন মাকে গ্রেপ্তার করা হাস্যকর। বাংলাদেশে আগামী বছর অনুষ্ঠিতব্য সাধারণ নির্বাচনের আগে বিরোধী রাজনীতিবিদ ও কর্মীদের নির্বিচারে আটকের অব্যাহত প্রতিবেদন ভয় ও অবিশ্বাসের পরিবেশ তৈরি করেছে।

বাবু রাম পান্ত আরও বলেন, বাংলাদেশের কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই অবিলম্বে আনিসা সিদ্দিকাকে মুক্তি দিতে হবে অথবা দ্রুতই আন্তর্জাতিক মান অনুযায়ী তাকে একটি স্বীকৃত অপরাধের জন্য অভিযুক্ত করতে হবে। দেশটির সরকারকে ভিন্নমতের দৃষ্টিভঙ্গির জন্য নির্বিচারে লোকেদের আটক করার অনুশীলন বন্ধ করতে হবে। ভিন্ন রাজনৈতিক মতামত রাখা ও প্রকাশ করা কোনো অপরাধ নয়।

তিনি বলেন, ‘সমালোচনামূলক কণ্ঠকে লক্ষ্যবস্তু করার পরিবর্তে, কর্তৃপক্ষকে নিশ্চিত করতে হবে যে, জনগণ যেন প্রতিশোধ বা বৈষম্যের ভয় ছাড়াই, মত প্রকাশের স্বাধীনতা, সংগঠন এবং শান্তিপূর্ণ সমাবেশের অধিকারসহ নির্বাচনের সময় ও আগে-পরে তাদের মানবাধিকার প্রয়োগ করতে সক্ষম হয়।’

তবে লেখালেখির জের ধরেই আনিছা সিদ্দিকা এবং অন্য দুজনকে গ্রেপ্তারের অভিযোগ অস্বীকার করছে খুলনার পুলিশ। পুলিশের কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, গ্রেপ্তারকৃতরা জামায়াতে ইসলামী এবং শিবিরের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মী।

পুলিশ এর আগে এক বিবৃতিতে জানিয়েছিলেন ‘রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রের বৈঠক’ করায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

খুলনার খালিশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল গিয়াস দাবি করেছেন, নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে ওই নারীসহ দুজনকে আটক করা হয়েছে।

অবশ্য বাংলাদেশের মানবাধিকার কর্মীদের বরাত দিয়ে বিবিসি বলছে, এর আগেও বিদেশে অবস্থান করে সামাজিক মাধ্যমে সরকার বিরোধী লেখালেখির কারণে বাংলাদেশে থাকা পরিবারকে ‘হেনস্তা করার’ উদাহরণ রয়েছে।

এদিকে আনিশা সিদ্দিকাকে আটকের ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়াতে বেশ সারা ফেলেছে। 

আমাদেরকাগজ/এমটি