??????? ১ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ ০৫:০৯

দাড়ি রাখবে পুলিশ লাগবে না অনুমতি

ইন্টারনেট

ইন্টারনেট

আমাদের কাগজ ডেস্ক : জনগণের জান মাল রক্ষাকারী সংস্থা বাংলাদেশ পুলিশের বাহিনীর সদস্যরা এবার দাড়ি রাখার অনুমতি পাচ্ছেন।  এ তথ্য নিশ্চিত করেছে খোদ (ডিএমপি) কমিশনার।  কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া দাড়ি রাখতে পারবেন না পুলিশ সদস্যরা।

এতে বলা হয়েছে, কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া দাড়ি রাখতে পারবেন না পুলিশ সদস্যরা। দাড়ি রাখতে চাইলে অনুমতি সাপেক্ষে ধর্মীয় অনুশাসন মেনে দাড়ি রাখতে হবে।

ডিএমপি সংশ্লিষ্ট সূত্রে আরো জানা যায়, গত ২০ আগস্ট ডিএমপি সদর দফতরে মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় বিষয়টি আলোচনা হয়। পরে ওই সভার কার্যবিবরণীতে পুলিশ কমিশনারের নির্দেশনা কলামে বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে।

এ  বিষয় ডিএমপির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, দেশে পুলিশ বাহিনী, একটি সুশৃঙ্খল বাহিনী। এ বাহিনীর সদস্যদের নিজের মতো করে সাজগোজ বা ফ্যাশন করে চলার কোনও সুযোগ নেই। কেননা দিন-রাত ২৪ ঘণ্টাই পুলিশ সদস্যদের দায়িত্ব পালন করতে হয়। বাহিনীর সদস্যদের বিভিন্ন নিয়ম ও বিধান মেনে চলতে হয়।

তারা আরও বলেন, অনেকেই দেখা যায় ইচ্ছামতো ফ্রেঞ্চকাট বা ফ্যাশনেবলভাবে চুল-দাড়ি রাখেন। হাল-ফ্যাশনের স্টাইলে দাড়ি রাখাটা বাহিনীর সদস্যদের জন্য সমীচীন নয়। কমান্ড ফোর্স হিসেবে বাহিনীর ভাবমূর্তি নষ্ট করে। এজন্য ধর্মীয় অনুশাসনের বাইরে পুলিশ সদস্যদের দাড়ি না রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সাধারণত গোয়েন্দা বিভাগের জন্য এ বিষয়ে ছাড় দেওয়া হয়। ছদ্মবেশে গোয়েন্দা সদস্যদের কাজ করতে হয়। এরপরও গোয়েন্দা বিভাগে কর্মরত পুলিশ সদস্যদের চুল বা দাড়ি বড় রাখতে হলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিতে হয়।

সংশ্লিষ্টরা আরও জানান, চুল-দাড়ি, পোশাক-পরিচ্ছদসহ সকল বিষয়ই পুলিশ রেগুলেশন অব বেঙ্গল বুক (পিআরবি), পুলিশ আইনে বলা হয়েছে। সর্বশেষ পুলিশের ড্রেস রুল-২০০৪-এ বলা হয়েছে, পুলিশের পোশাক-পরিচ্ছদ ও লুক হতে হবে পরিচ্ছন্ন ও মানানসই। যাতে প্রথম দেখায় যেকোনও সদস্যকে স্মার্ট ও চটপটে মনে হয়।

পুলিশের ড্রেস রুল-২০০৪-এ নারী পুলিশ সদস্যদের পোশাক-পরিচ্ছদের বিষয়ে বিস্তারিত উল্লেখ রয়েছে। আগে নারী পুলিশ সদস্যরা বিভিন্ন রঙের হিজাব পরিধান করলেও নির্দিষ্ট রঙের হিজাব পরিধান ও নারী পুলিশ সদস্যদের চুলের আকার অনুযায়ী কীভাবে চুল বাঁধবে সেই নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ইউনিফর্ম পরা অবস্থায় কোনও নারী পুলিশ সদস্য অলংকার বা প্রসাধনী ব্যবহার করতে পারবেন না।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) এক কর্মকর্তা জানান, সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক পুলিশ সদস্যকে হাস্যকরভাবে নিজেদের উপস্থাপন করতে দেখা গেছে। পুলিশের পোশাক পরা অবস্থায় টিকটক অ্যাপে নিজেদের হাস্যকরভাবে উপস্থাপন করছেন অনেকেই। পরে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

ডিএমপির ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, পুলিশে যারা চাকরি করেন তাদের সবসময় স্মার্ট ও দায়িত্বশীল হয়ে কাজ করতে হয়। মানুষ নেতিবাচকভাবে নিতে পারে কিংবা সমালোচনা করতে পারে, এমন কাজ পুলিশ সদস্যদের এড়িয়ে চলতে হয়।

তিনি বলেন, হাল-ফ্যাশনের স্টাইলে চুল-দাড়ি রাখা সামাজিকভাবে ‘বখাটেপনার‘ অংশ হিসেবে দেখা হয়। তাই পুলিশ সদস্যদের সতর্ক করতে ডিএমপি কমিশনার নির্দেশনা দিয়েছে। 

ঢাকা/ এমটি