রাজনীতি ২২ অক্টোবর, ২০২৩ ০৪:৩৪

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশের অসম্প্রদায়িক চেতনাকে ধ্বংস করে দিয়েছিল: প্রধানমন্ত্রী 

নিজস্ব প্রতিবেদক: আমাদের দুর্ভাগ্য ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে নির্মমভাবে হত্যা করার পর যারা ক্ষমতায় এসেছিল, তারা আমাদের দেশে অসম্প্রদায়িক চেতনাকে ধ্বংস করে দিয়েছিল। আওয়ামী লীগ ক্ষমতা আসার পর সংবিধান সংশোধন করে সকল ধর্মের নিরপেক্ষতা, সকল ধর্ম পালনের স্বাধীনতা নিশ্চিত করেছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

আজ রোববার (২২ অক্টোবর) রামকৃষ্ণ মিশন পূজামণ্ডপ পরিদর্শনে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে ঢাকেশ্বর মন্দিরের পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রী। 

তিনি বলেন, এবারের পূজামণ্ডপের রক্ষাকারীর দায়িত্বে আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। আমাদের সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদেরকে নির্দেশ দিয়েছি, তারাও যেন সতর্ক অবস্থায় থেকে সব ধরনের শান্তি বজায় রাখার কাজ করে। সেভাবে আমরা করেও যাচ্ছি।

সরকারপ্রধান বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বে এমন একটা দেশ, আমরা সকল ধর্ম পালন করে থাকি, এটাই হচ্ছে বাংলাদেশের সব থেকে সৌন্দর্য। হাজার হাজার পূজা মন্ডপে পূজা হচ্ছে বাংলাদেশে, আপনারা শান্তিপূর্ণভাবে পূজা পালন করতে পারছেন। এক সময় এদেশে এমনও ঘটনা ঘটেছিল, পূজা না করে শুধুমাত্র ঘর পুজো করতে হয়েছিল। এরশাদের আমলে বা খালেদা জিয়ার আমলে এমন বহু ঘটনা ঘটেছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সকলে একসঙ্গে কাজ করে, আপনাদের পাশে সব সময় আছে। 

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর আমাদের স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন। তার ডাকে সাড়া দিয়ে অস্ত্র তুলে নিয়েছিল বাংলাদেশের সকল ধর্মের বর্ণের মানুষ। যুদ্ধ করে বিজয় এনে দিয়েছেন। জাতির পিতা যে সংবিধান দিয়েছিলেন সেই সংবিধানের সকল ধর্ম বর্ণ সকল মানুষের অধিকার নিশ্চিত করেছিলেন। যে যার ধর্মের সে তার ধর্ম পালন করবে নিশ্চিত করেছিলেন। আমাদের দুর্ভাগ্য ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে নির্মমভাবে হত্যা করার পর যারা ক্ষমতায় এসেছিল, তারা আমাদের দেশে অসম্প্রদায়িক চেতনাকে ধ্বংস করে দিয়েছিল। 

সরকারপ্রধান বলেন, আমরা উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি, সেটা ২০২৬ সাল থেকে কার্যকর হবে। বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকুক সেটাই আমরা কামনা করি। সেজন্য আমরা সকল ধর্মের সকলে একসঙ্গে এই মাতৃভূমির জন্য কাজ করব। এই দেশ সকলের, আপনারা কখনো নিজেদেরকে ছোট মনে করবেন না। সব সময় মনে করবেন এই মাটি আপনাদের, এই মাটিতে আপনাদের জন্ম, সকল অধিকার নিয়েই আপনারা বসবাস করবেন। আমরা ক্ষমতা থাকলে অবশ্যই নিশ্চয়তা দিয়ে বলতে পারি, আমরা পাশে আছি, পাশে থাকবো। সারা বিশ্বের এই সনাতন ধর্মীয় সকলকে আমার শুভেচ্ছা। আমরা চাই আমাদের দেশ এগিয়ে যাক, সেই অগ্রদূত অব্যাহত থাকুক, সকলের সুন্দরভাবে বসবাস করুক, এই কামনা করি।’

আমাদের কাগজ/এমটি