রাজনীতি ৬ নভেম্বর, ২০২৩ ১১:১৬

ইইউকে ‘খোঁজখবর নিয়ে’ বিবৃতি দিতে হবে: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক
বিএনপির নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যে বক্তব্য এসেছে, সেটি সংশোধনের অনুরোধ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বিবৃতি দেওয়ার আগে এ বিষয়ে খোঁজ খবর নেওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন তিনি।

সোমবার দুপুরে তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন ক্ষমতাসীন দলের নেতা।

কাদের বলেন, “আজকে ইইউ থেকে বলা হচ্ছে জেলে থাকা ৮ হাজার নেতাকর্মীদের (বিএনপি) মুক্তি দেওয়ার জন্য। তারা আমাদের বন্ধু রাষ্ট্র, আমরা তাদের বক্তব্যে নিন্দা জানাতে পারি না, তবে তাদের তথ্যে ঘাটতি আছে।”

আগের দিন বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র বিষয়ক উচ্চ প্রতিনিধি জোসেপ বোরেল এক বিবৃতিতে বলেন, “বাংলাদেশে আট হাজারের বেশি বিরোধী কর্মীকে গ্রেপ্তারে উদ্বিগ্ন।… সব ঘটনায় অবশ্যই ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে।”

ইইউয়ের সঙ্গে বাংলাদেশ কোনো ‘বিবাদে জড়াতে চায় না’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “ইউরোপীয় ইউনিয়নকে খোঁজখবর নিয়ে তারপর বিবৃতি দিতে হবে এবং সেই সঙ্গে পুরনো বক্তব্য সংশোধন করে দিতে হবে।”

বিএনপির আন্দোলন করে কিছুই করতে পারবে না বলেও মনে ওবায়দুল কাদের। বলেন, “জনগণের শক্তির কাছে পারমাণবিক শক্তিও টিকে থাকে না। …মানুষ শেখ হাসিনাকে ভোট দিতে উন্মুখ হয়ে আছে।”

বিএনপির আন্দোলন নিয়ে তিনি বলেন, “বিএনপি বলেছিল আওয়ামী লীগ পালাবার পথ খুঁজে পাবে না। কিন্তু এখন বিএনপিই পালাবার অলিগলি খুঁজে পাচ্ছে না।

“২৮ তারিখে আমরা দেখলাম মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপির নেতারা অলিগলি দিয়ে পালিয়ে গেল তাদেরকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।”

নেতা-কর্মীদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে ক্ষমতাসীন দলের নেতা বলেন, “নির্বাচন পর্যন্ত আমরা সতর্ক পাহারায় থাকব। আমরা চোরাগোপ্তা হামলায় আতঙ্কিত না, আমরা ভয় পাই না।” 

বিএনপি-জামায়াত অবরোধের নামে ‘আগুন সন্ত্রাস করছে’ মন্তব্য করে তিনি বলেন, “এ দেশে কালো মেঘ আসে, আবার চলে যায়। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সব ধরনের অপশক্তি প্রতিহত করব আমরা। উদ্বেগ থাকবে, তা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।”


বিএনপির কার্যালয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা পরিচয়ে সংবাদ সম্মেলন করানোর কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, “বিএনপি উল্লাপাড়ার এক পাগলকে ধরে এনে জো বাইডেনের বন্ধু বানিয়ে দেশের মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করেছে। আন্দোলনের নামে প্রতারণার নাটক যারা করে তাদের হাতে দেশ কখনো নিরাপদ নয়।”

নাশকতা ঠেকাতে দায়িত্ব পালনের সময়ে কোনো নিরীহ মানুষ যেন হয়রানির শিকার না হয়, সে বিষয়টি মাথায় রাখতেও অনুরোধ রাখেন আওয়ামী লীগ নেতা।

তিনি বলেন, “যারা প্রতিদিন আগুন সন্ত্রাস করে তাদের ছেড়ে দেওয়া হবে না। কিন্তু আগুন সন্ত্রাসীদের সঙ্গে যেন কোনো নিরপরাধ মানুষকে গ্রেপ্তার করা না হয়, সে বিষয়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে সচেতন থাকতে হবে।”

বিএনপি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া চলমান আছে বলেও জানান কাদের।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, কার্যনির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ আলী আরাফাত, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পনিরুজ্জামান তরুণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।