জাতীয় ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ০১:১৯

শান্তি, সাম্য ও পরিপূর্ণ হেদায়েতের আর্জি আখেরি মোনাজাতে

নিজস্ব প্রতিবেদক
আখেরি মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়েছে ৫৭তম বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। বিশ্বশান্তি, সারা দুনিয়ার মুসলিমদের হেফাজত, ঈমানী হেফাজত, জানমালের হেফাজত, পারস্পরিক ভ্রাতৃত্ব, নবীওয়ালা জীবন আর উন্নত আখলাক গড়ার জন্য বিশেষ মোনাজাত করা হয়।


মোনাজাতে আল্লাহর কাছে নিজের রাগকে বশ, নাফরমানিকে ঘৃণা, ভালোবাসা ছড়িয়ে বিশ্ব মুসলিম ভ্রাতৃত্ব গড়ার বিশেষ আর্জি জানানো হয়। এসময় আল্লাহর কাছে গুনাহ মাফের জন্য তওবা, সারা দুনিয়ার মুসলমান নর-নারীর গুনাহ মাফ, ঈমানের হাকিকত, ঈমানী ভয়, ঈমানী মৃত্যু, ঈমানী ভ্রাতৃত্ব মজবুত করা, ঈমানী রিজিক, ঈমানের সঙ্গে কবরে ও আখেরাতে পুনরুত্থিত হওয়ার তাওফিক চাওয়া হয়।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টা ১৭ মিনিটে তুরাগতীরে দ্বিতীয় পর্বের আখেরি মোনাজাত শুরু হয়ে শেষ হয় ১১টা ৪৩ মিনিটে। প্রায় ২৬ মিনিটব্যাপী আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন ভারতের বিশিষ্ট আলেম মাওলানা সাদ কান্ধলভীর ছেলে মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ।

মোনাজাতের আগে তিনি হেদায়েতি বয়ান করেন। তার বয়ান বাংলায় তর্জ‌মা করেন বাংলাদেশের মাওলানা মনির বিন ইউসুফ। দোয়ার শুরুতে মাওলানা ইউসুফ বিন সাদের মাধ্যমে ইজতেমায় অংশ নেওয়া সবাইকে সালাম জানান মাওলানা সাদ কান্ধলভী।

মোনাজাতে মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ বলেন, হে আল্লাহ সারা দুনিয়ার সব মোমিন-মোমিনাত নারী-পুরুষকে ক্ষমা করে দিন। আমাদের তওবাগুলোকে কবুল করে নিন। দুনিয়ার সব মানুষকে মঙ্গল ও কল্যাণ দান করুন। হে আরশের অধিপতি আমাদের ইসলামের প্রতি ঈমান দৃঢ় করে দিন। আমাদের হকের ওপর থাকার তৌফিক দিন। বাতিলকে ধ্বংস করে দিন। দুনিয়ার সব ফিতনা থেকে আমাদের হেফাজত করুন। সব মানুষের কল্যাণ দান করুন। আমাদের জান্নাত দান করুন আর জাহান্নামের ভয়াবহ শাস্তি থেকে মুক্তি দিন।

দীর্ঘ এ মোনাজাতে তিনি বিশ্ব শান্তি ও সম্প্রতির আর্জি জানিয়ে বলেন, হে আমাদের রব আপনি বড় মেহেরবান। আপনি আমাদের প্রতি রহম করুন। আমাদের সব গুনাহ মাফ করে দিন। আপনার ভালোবাসা আর ভয় অন্তরে দিয়ে দিন। আমরা দুর্বল আমাদের সক্ষম করে দ্বীনের কাজে নিন। আমাদের ওপর রাজিখুশি হয়ে যান। সারা দুনিয়ার আলেমদের হেফাজত করুন। দুনিয়ার সব পেরেশানি থেকে আপনার বান্দাদের মুক্তি দিন। হে আমাদের রব এ ইজতেমাকে কবুল করুন। যারা বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেছে তাদের সবাইকে মাফ করে দিন। তাদের ওপর রাজি হয়ে যান। ইখলাসের সঙ্গে এবাদত করার তৌফিক দিন। মসজিদগুলোকে আবাদের শক্তি দিয়ে দিন। সাহাবীওয়ালা একীন আর নবীওয়ালা জীবন দিন। আমাদের সব কাজকে সহজ করে দেন। সব কঠিন অসুখ থেকে আমাদের হেফাজত করুন।